1. admin@songbadmoulvibazar.com : admin :
রবিবার, ২২ মে ২০২২, ১১:১৬ অপরাহ্ন

গণটিকা নিতে কেন্দ্রে ভিড়,সুষ্ঠভাবে কার্যক্রম চলছে:পৌর মেয়র

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : শনিবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

মৌলভীবাজারে ‘এক দিনে এক কোটি’ কোভিড-১৯ টিকাদান কার্যক্রমের গনটিকা কর্মসূচী পালিত হয়। সেই সাথে চলে নিয়মিত টিকাদান কার্যক্রমও। এ কার্যক্রমের আওতায় মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে অতিরিক্ত অস্থায়ী কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। যা চলমান থাকবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

সর্বস্থরের মানুষের টিকা গ্রহন সহজতর করতে, ইতোমধ্যে যারা টিকার জন্য নিবন্ধন করতে পারেননি, বা টিকা নিতে পারেননি, তাদের সবাইকে বিশেষ এ টিকাদান কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে কোভিড-১৯ টিকার প্রথম ডোজ দেয়া হচ্ছে। প্রথমে রেজিস্ট্রেশন করে টিকা দেয়ার নিয়ম চালু করলেও এবার এ ক্যাম্পেইনে বয়স ১৮ তদুর্দে যে কোন নাগরিক রেজেস্ট্রিশেন ছাড়াই শুধুমাত্র মোবাইল নাম্বার ও নাম নিবন্ধন করেই টিকা নিতে পারছেন।

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টায় মৌলভীবাজার জেলার সাত উপজেলা ও পাঁচটি পৌরসভায় একসঙ্গে শুরু হয় এ টিকাদান কর্মসূচি। সকাল থেকে টিকা নিতে বিভিন্ন কেন্দ্রগুলোতে ছিল নারী-পুরুষ সব শ্রেণী পেশার মানুষের উপচেপড়া ভিড়। এ অবস্থায় দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেই টিকা নিচ্ছেন লোকজন।

গনটিকার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, পৌর মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান ও সিভিল সার্জন ডা. চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুর্শেদ।

জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেন, জেলার সব উপজেলা ও পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে এ গণটিকা কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। টিকাদান কার্যক্রম সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হচ্ছে, কেন্দ্রে আসা সবাই টিকা পাবেন।

 

পৌর মেয়র মোঃ ফজলুর রহমান বলেন, মৌলভীবাজারে গণটিকা কার্যক্রম সকাল থেকে সুষ্ঠভাবে চলছে। সকালে শহরের বিভিন্ন কেন্দ্র সরেজমিন পরিদর্শন করেছি। টিকা নিতে আসা লোকজন সুশৃঙ্খলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকা গ্রহন করছেন। আশা করছি, জেলার শতভাগ করোনা টিকার আওতায় আসতে আমরা সফল হবো

জেলা সিভিল সার্জন ডা. চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুর্শেদ বলেন, গনটিকায় জেলার ১৮ লক্ষ জনসাধারনকে করোনা টিকার প্রথম ডোজ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। এ কর্মসূচির আওতায় শুধু মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় ১৮ বছর এবং তদূর্ধ্ব বয়সী ব্যক্তিদের জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকাটি দেয়া হচ্ছে।

অন্য কোম্পানির টিকা যেখানে অন্তত দুই ডোজ দিতে হত, সেখানে জনসনের তৈরি এই করোনাভাইরাসের টিকা এক (সিঙ্গেল) ডোজের। এই টিকা যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি জনসন অ্যান্ড জনসনের সহযোগী প্রতিষ্ঠান জেনসেন ফার্মাসিউটিক্যালসের তৈরি। এর আগে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা, ফাইজার-বায়োএনটেক, মডার্না, সিনোফার্ম, সিনোভ্যাকের টিকা আসে বাংলাদেশে। এসব টিকা দিয়ে চলছিল টিকাদান কর্মসূচি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ সংবাদ মৌলভীবাজার
Theme Customized BY Songbad Moulvibazar
error: Content is protected !!